শুক্রবার ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ প্রতিদিনকে স্টিফ্যানি ডুজারিক

বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোর ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জাতিসংঘের আন্তরিকতায় কোন কমতি নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০২৩ | প্রিন্ট  

বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোর ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জাতিসংঘের আন্তরিকতায় কোন কমতি নেই

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফ্যানি ডুজারিক। ছবি-বাংলাদেশ প্রতিদিন।

জলবায়ু পরিবর্তনের পরিপ্রেক্ষিতে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত দেশগুলোর ক্ষয়-ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জাতিসংঘের আন্তরিকতায় কোন কমতি নেই। তবে সদস্য রাষ্ট্রসমূহকেও এ ব্যাপারে জোরালো ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে। ১৪ আগস্ট সোমবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংকালে বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রশ্নের জবাবে মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফ্যানি ডুজারিক এ কথা বলেছেন।

স্টিফ্যানি ডুজারিক বলেছেন, জাতিসংঘ মহাসচিব মনে করেন যে, জলবায়ু পরিবর্তনের ধ্বংসাত্মক প্রভাব মোকাবেলায় ক্ষতি এবং ক্ষয়ক্ষতি পূরণের তহবিল একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আর এটা আমরা সবাই জানি, জলবায়ু পরিবর্তিত হবার ক্ষেত্রে সবচেয়ে কম দায়ী দেশগুলিই সবচেয়ে বেশি হুমকিতে নিপতিত হয়েছে। যেসব দেশ অথবা নাগরিকেরা আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাসের জন্যে নির্ভরযোগ্য বায়ুতে সবচেয়ে কম ক্ষতিকারক রাসায়নিক নির্গত করছে তারাই ভয়ংকর হুমকির মুখে রয়েছে। এবং আমরা আরো জানি যে, বাংলাদেশ তার উপকূলীয় অঞ্চল নিয়ে কতটা ঝুঁকিতে পড়েছে। আমরা আশা করছি, আসন্ন শীর্ষ সম্মেলনে সদস্য রাষ্ট্র এবং প্রতিনিধি দলের প্রধানরা বাস্তবতার আলোকে জোরালো ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন-যা জলবায়ু সম্মেলনে (সিওপি২৭) দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে সহায়তা করবে।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ জলবায়ু সম্মেলনে (সিওপি২৭)র সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ক্ষতি এবং একেবারেই ধ্বংসপ্রাপ্ত এলাকার পুনর্বাসন কর্মসূচির জন্যে একটি তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আর এটি করা হয় বছরের পর বছর ধরে জলবায়ুর ঝুঁকিতে থাকা উন্নূয়নশীল দেশসমূহের নিবেদিতপ্রাণ কর্মীগণের সংঘবদ্ধ আবেদন-নিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে। সবচেয়ে ভয়ংকর আকারের জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে থাকা দেশ তথা বাংলাদেশের মত দেশসমূহকেও এই তহবিল থেকে সহায়তার অঙ্গিকার রয়েছে। সেই অঙ্গিকারের পরিপূরক পদক্ষেপ কীভাবে নেয়া হবে সামনের মাসে জাতিসংঘ সদর দফতরের শীর্ষ সম্মেলনে-সেটিই ছিল বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রশ্ন এবং এ সময় জাতিসংঘ মহাসচিবের অবস্থান সম্পর্কেও সুনির্দিষ্টভাবে জানতে চাওয়া হয়েছিল।

(মহাসচিবের মুখপাত্রের জবাব : Well, the Secretary-General feels that the loss and damage fund is a critical part of addressing the devastating impact of climate change, as we all know, has been much more severe on those countries that have contributed the least to our changing climate, who have been emitting the least harmful chemicals into our air. And we know how vulnerable Bangladesh is with its coastline. We very much hope that at the upcoming summit, the Member States and heads of delegations will come with strong acts and action that will help to fulfil the promises that were made at the COP .)।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১:২৫ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০২৩

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar