সোমবার ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিউইয়র্ক টাইমস/সিয়েনা কলেজ জরিপ : ৩৭ শতাংশ নিরপেক্ষ ভোটারের ধারণা শিগগিরই ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবে যুক্তরাষ্ট্র

লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র   |   রবিবার, ২০ আগস্ট ২০২৩ | প্রিন্ট  

নিউইয়র্ক টাইমস/সিয়েনা কলেজ জরিপ :  ৩৭ শতাংশ নিরপেক্ষ ভোটারের ধারণা শিগগিরই ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবে যুক্তরাষ্ট্র

কোনো দলের সাথে বা রাজনীতির সাথে যুক্ত নন কিন্তু ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্ত-এমন আমেরিকানের ৩৭% মনে করছেন যে সহসাই যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত হবে। নিউইয়র্ক টাইমস/সিয়েনা কলেজ পরিচালিত (ঘবি ণড়ৎশ ঞরসবং/ঝরবহধ ঈড়ষষবমব ঢ়ড়ষষ. ) জরিপে এমন হতাশাব্যঞ্জক তথ্য উদঘাটিত হয়েছে-যা ১৯ আগস্টের গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রকাশ ও প্রচার পেয়েছে। জরিপে অংশগ্রহণকারী রিপাবলিকান পার্টির সমর্থকদের ৫৬% বলেছেন, ‘আমরা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার পথে ধাবিত হচ্ছি।’ তবে ক্ষমতার বাইরে থাকা দলের সমর্থকেরা সব সময়ই এমন আশংকা পোষণ করে থাকে। তবে এ জরিপে কোনো দলের সমর্থক নন-এমন নিরপেক্ষ ভোটারেরাও আশংকা করছেন যে, ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবার ভয়ংকর একটি পর্যায়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এমনকি, ডেমক্র্যাটিক পার্টির সমর্থকের মধ্য থেকেও ২০% একই আশংকা ব্যক্ত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র যে ভয়ংকর একটি পরিস্থিতিতে নিপতিত হয়েছে-তা কেন মনে করছে রিপাবলিকানরা? এমন প্রশ্নের জবাবে জরিপ পরিচালনাকারিরা গণমাধ্যমে বলেছেন, যারা ডনাল্ড ট্রাম্পকে পুনরায় প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চায়-তারাই গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাইডেন প্রশাসনের ব্যর্থতা নিয়ে। এমন মনোভাব পোষণকারি রিপাবলিকানের অধিকাংশেরই বয়স ৬৫ বছরের বেশী এবং উচ্চ শিক্ষিত নন। তারা ফক্স নিউজের প্রতি আসক্ত, অন্যেরা বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা করেন না বলে এই শ্রেণীর রিপাবলিকানের ধারণা। সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার ৭২ বছর বয়েসী মার্গো ক্রিমার ট্রাম্পের সমর্থক, তিনি বলেছেন, ট্রাম্প আমলে আমেরিকার জন্যে ভাল ছিল যেসব বিষয় তা দায়িত্ব গ্রহণের দিনই সরিয়ে দিয়েছেন জো বাইডেন। বাইডেন সীমান্তকে খুলে দিয়েছেন। মিছিল করে বিদেশিরা ঢুকছে যুক্তরাষ্ট্রে। এমন বর্বরতা আগে কেউ দেখেনি। এজন্যে এখন দরকার হচ্ছে ট্রাম্পের মত প্রেসিডেন্টের এবং এজন্যেই আমরা সামনের নির্বাচনে আবারো ট্রাম্পকে বিজয় দিতে চাই।

অনেক রিপাবলিকান সমর্থক করোনা মহামারীকে পুঁজি করে বাইডেন প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিকে ধ্বংস করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন, যার ভিকটিম এখন সকলেই। বাইডেনের সেই ব্যর্থতার কারণেই যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার পর্যায়ে পতিত হয়েছে।

ইন্ডিয়ানা স্টেটের ফুলটন কাউন্টির রিপাবলিকান ড্যালে বোইয়ার বলেন, করোনা সকলকেই নাড়া দিয়ে গেছে সিটিজেন হিসেবে আমাদের দায়িত্ব সম্পর্কে। গৃহবন্দী করেছিল সকলকে। প্রয়োজন সত্বেও আমরা বাইরে যাবার অনুমতি পাইনি। যুক্তরাষ্ট্রের পুরো নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেছিল সেই মহামারি। সেই মহামারি ভেবেছে যে আমরা বোকা, অথর্ব; আমরা আগে অনুধাবনে সক্ষম হইনি কী পরিস্থিতি ধেয়ে আসছে।

হোয়াইট হাউজে বাইডেন অধিষ্ঠিত থাকা সত্বেও ডেমক্র্যাটরাও কেন শঙ্কিত যে আমেরিকা ডুবতে যাচ্ছে? এ প্রসঙ্গে জরিপ পরিচালনাকারীরা বলেছেন, এমন আশংকা পোষণকারি ডেমক্র্যাটের সংখ্যা রিপাবলিকানদের চেয়ে অনেক কম। তবে পুরুষের চেয়ে নারীরা এমন আশংকা প্রকাশ করছেন সবচেয়ে বেশী। রিপাবলিকান পার্টির সমর্থক নারীরাও এগিয়ে রয়েছেন পুরুষের তুলনায়। নিউইয়র্ক সিটিতে বসবাসকারী ডেমক্র্যাট অ্যান রুবিয়ো বলেন, আমি আগে কখনো দেখিনি এমন বিপর্যয়কারি পরিস্থিতি।

গত ক’বছর তা দেখছি এবং হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছি যে আমেরিকা ডুবতে বসেছে। জানুয়ারির ৬ তারিখে ক্যাপিটল হিলে জঙ্গি হামলার ঘটনার পরও আমরা শিক্ষা নিতে পারিনি, কারণ এখন পর্যন্ত ঐ হামলার মাস্টারমাইন্ড ডনাল্ড ট্রাম্পকে জেলে ঢোকানো সম্ভব হয়নি। আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি যুক্তরাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানটি তছনছ হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া, গর্ভপাত ইস্যুতে বাইডেন প্রশাসনের রহস্যজনক আচরণেও ডেমক্র্যাটিক পার্টির নারী সমর্থকরা চরমভাবে হতাশ। ফ্লোরিডার টেম্পায় বসবাসরত ৩৭ বছর বয়েসী ব্র্যান্ডন থমসন ডেমক্র্যাটিক পার্টির কট্টর সমর্থক, তিনিও চরম হতাশা প্রকাশ করেছেন জো বাইডেনের নেতৃত্বের ব্যাপারে। যুক্তরাষ্ট্রের অনেক স্টেটেই গর্ভপাত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এটা কী সভ্যতার পরিপূরক? এটা কী আমেরিকার চেতনার পরিপন্থি নয়?

জরিপ ফলাফল অনুযায়ী, রেজিস্টার্ড ভোটারের ৩৭% বলেছেন যে, ভয়ংকর একটিন বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ২৬% বলেছেন ব্যর্থ রাষ্ট্রের পতিত হওয়ার আশংকা না থাকলেও উদ্ভ’ত পরিস্থিতি খুবই করুণ। মাত্র ২৩% বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্র সঠিক পথেই রয়েছে। রিপাবলিকান পার্টির সমর্থক ভোটারের ৫৬% মনে করছেন ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবার ভয়ংকর একটি পর্যায়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এমন ভোটারের ২৮% বলেছেন ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবার আশংকা না থাকলেও কঠিন একটি সংকট অতিক্রম করছে যুক্তরাষ্ট্র। মাত্র ৮% মনে করছেন যে যুক্তরাষ্ট্র সঠিক পথেই রয়েছে।

ডেমক্র্যাটিক পার্টির সমর্থক হিসেবে তালিকাভুক্ত ভোটারের ২০% মনে করছেন বাইডেনের ব্যর্থতার খেসারত হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ রাষ্ট্রে পতিত হতে যাচ্ছে। ২৫% মনে করছেন বর্তমানের পরিস্থিতি খুবই নাজুক,তবে ব্যর্থ রাষ্ট্রের পরিণত হবার মত নয়। এমন ভোটারের ৩৯% বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্র সঠিক ট্র্র্যাকেই রয়েছে।

রিপাবলিকান পার্টির পুরুষ সমর্থকের ৫০% ভাবছেন সহসাই ব্যর্থ রাষ্ট্রের তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ৩৪% এর ধারণা যে বাইডেনের ব্যর্থতার জের হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র কঠিন পরিস্থিতিতে নিপতিত হয়েছে। এমন পুরুষ ভোটারের মাত্র ৯% মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্র সঠিক ট্র্যাকেই আছে। একই তালিকার নারী ভোটারের ৬৫% এর বদ্ধমূল ধারণা যে, শীঘ্রই যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ রাষ্টে্রুর তালিকাভুক্ত হবে। মাত্র ২১% বলেছেন যে, ব্যর্থ রাষ্ট্র না হলেও মারাত্মক একটি পর্যায়ে পতিত হতে যাচ্ছে। রিপাবলিকান সমর্থক নারী ভোটারের মাত্র ৭% ভাবছেন যে, সঠিক ট্র্যাকেই রয়েছে বাইডেনের যুক্তরাষ্ট্র।

ডেমক্র্যাটিক পার্টির কট্টর সমর্থক পুরুষ ভোটারের ১১% মনে করছেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেন যোগ্য নন। ২৭% এর ধারণা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পতিত না হলেও কঠিন একটি পরিস্থিতিতে নিপতিত হতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই শ্রেণীর পুরুষ ভোটারের ৪৭% বলেছেন সঠিক ট্র্যাকেই আছে আমেরিকা। ডেমক্র্যাটিক পার্টির ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্ত নারীর ২৫% মনে করছেন ভয়ংকর একটি পরিস্থিতিতে নিপতিত যুক্তরাষ্ট্র শীঘ্রই ব্যর্থ রাষ্ট্রের তালিকাভুক্ত হতে চলেছে। ২৪% বলেছেন ব্যর্থ নয়, কঠিন একটি পরিস্থিতি অতিক্রম করছে বাইডেনের আমেরিকা। আর ৩৫% এর ধারণা সঠিক ট্র্যাকেই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ২:১৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২০ আগস্ট ২০২৩

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar