সোমবার ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রবাসী বাংলাদেশি ফোরামের ১২ দফা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | প্রিন্ট  

প্রবাসী বাংলাদেশি ফোরামের ১২ দফা

সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী ফোরামের দাবিনামা আলোকে বক্তব্য দেন ফখরুল আলম। ছবি-বাংলাদেশ প্রতিদিন।

জীবন-জীবিকাসহ নানাকারণ আর প্রয়োজনে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন এবং প্রতিনিয়ত তারা প্রিয় মাতৃভূমিতে নানাভাবে নিগৃহিত হচ্ছেন। বসতভিটে বেহাত হবার অভিযোগও উঠছে হরদম। এসব অভিযোগের স্থায়ী সমাধানের জন্য ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে প্রবাসীদের মৌলিক ১২ দফা দাবি উপস্থাপন করার পর সারাবিশ্বের প্রবাসী বাংলাদেশীদের সোচ্চার হবার আহবান জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে সূচনা বক্তব্যে বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম বলেন, প্রিয় জন্মভূমি ত্যাগ আসলে একটা রক্তক্ষরণের মতো বিষয়, সেই তীব্র ব্যথাকে উপেক্ষা করে প্রবাসী জীবন-যাপন করার পাশাপাশি নানাভাবে নিজ নিজ পরিবার থেকে শুরু করে রাষ্ট্রকে সহযোগিতা করছেন। তিনি বলেন, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী প্রবাসীরা আজ দেশে-প্রবাসে নানা সমস্যায় জড়িত। প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ আবার বিদেশে পাচার হয়ে আসছে। অথচ তার কোন প্রতিকার বা বিচার নেই। তিনি বলেন, অনেকে প্রবাসীদের সাথে চরম প্রতারণা করছেন, প্রবাসীদের অর্থ নিয়ে জায়গা-জমি, ভূমি, অ্যাপার্টমেন্ট, প্লট বুঝিয়ে দিচ্ছেন না। এ অবস্থায় নিজেদের দাবী-দাওয়া আদায়ে সময় এসেছে প্রবাসীদের সোচ্চার হওয়ার।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কুইন্স কমিউনিটি বোর্ড মেম্বার আহসান হাবীব। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ ও মুহাম্মদ ফজলুর রহমান। এছাড়াও ফখরুল আলমসহ সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন কমিউনিটি লীডার এটর্নী মঈন চৌধুরী, কাজী আজহারুল হক মিলন, মোহাম্মদ আলী, কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন, আমীন মেহেদী বাবু, মূলধারার রাজনীতিক সৈয়দ রাব্বী প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়: জীবন-জীবিকা সহ নানা কারণ আর প্রয়োজনে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশী যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন। প্রিয় মাতৃভূমি ছেড়ে কোটি কোটি বাংলাদেশি এখন প্রবাসী জীবন-যাপন করছেন। দেশ ত্যাগ আসলে একটা রক্তক্ষরণের মতো বিষয়, কিন্তু আমরা সেই তীব্র ব্যথাকে উপেক্ষা করে প্রবাসী জীবন-যাপন করার পাশাপাশি নানাভাবে আমাদের পরিবার থেকে শুরু করে রাষ্ট্রকে সহযোগিতা করছি। আমাদের পাঠানো রেমিটেন্সে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে, প্রাণপ্রিয় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু অপ্রিয় হলেও সত্য যে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী প্রবাসীরা আজ নানা সমস্যায় জড়িত। এগুলো হচ্ছে ১. নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমানের সরাসরি ফ্লাইট, ২. ঢাকাস্থ শাহজালাল (র) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি বন্ধ, ৩. প্রবাসীদের ভোটাধিকার, ৪. বিদেশের বাংলাদেশ কনস্যুলেট ও দূতাবাসের মাধ্যমে ভোটাধিকার ও এনআইডি প্রদানের ব্যবস্থা, ৫. দ্বৈত নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে হয়রানি বন্ধ, ৫. বাংলাদেশের অফিস-আদালতে লাল ফিতার দৌরাত্ব বন্ধ, ৬. প্রবাসীদের জন্য ঢাকায় চালু করা ‘ওয়ান স্টপ সার্ভিস’ কার্যকর করা, ৭. দেশের ভূমিদূস্যদের হাত থেকে প্রবাসীদের রক্ষা। বিশেষ করে চুক্তি মোতাবেক ক্রয় করা জমি, প্লট, অ্যাপার্টমেন্ট সহজে সংশ্লিষ্ট প্রবাসীর কাছে বুঝিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করা, ৮. প্রিয় জন্মভূমি সফরকালে প্রবাসীদের জানমালের নিরাপদের ব্যবস্থা করা, ৯. বাংলাদেশে প্রবাসীদের ঘর-বাড়ী ও স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রক্ষার ব্যবস্থা করা, ১০. প্রবাসীদের প্রেরিত রেমিটেন্সের অর্থে গড়ে উঠা অর্থনীতির লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার বন্ধ করা সহ পাচারকারীদের বিচারের আওতায় নিয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা, ১১. কনস্যুলেট সেবা বৃদ্ধি করে প্রবাসীদের পাসপোর্ট নবায়ণ, জন্মসনদ, মৃত্যুসনদ, দেশের সম্পত্তি হস্তান্তরে পাওয়ার অব এটর্নি প্রদানের মতো কাজগুলো সহজ করা এবং ১২. যেকোন প্রবাসী বাংলাদেশির মরদেহ বিনা খরচে দেশে নেওয়ার ব্যবস্থা করা।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৫:৪১ অপরাহ্ণ | বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar