শনিবার ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এমপি আনারের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছেন শাহীন

প্রতিদিন ডেস্ক   |   বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪ | প্রিন্ট  

এমপি আনারের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছেন শাহীন

সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার খুনের ঘটনায় তাকে ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন অভিযুক্ত আক্তারুজ্জামান শাহীন। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) যুক্তরাষ্ট্র থেকে একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে শাহীন জানান, এমপি আনার হত্যার সময় তিনি বাংলাদেশে ছিলেন। পাঁচ কোটি টাকায় কিলিং মিশন চুক্তির খবর অস্বীকার করেছেন তিনি।

আক্তারুজ্জামান শাহীন বলেন, এই ঘটনায় আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। এই ঘটনার সময় আমি ভারতে ছিলাম না।

আমার আইনজীবী বলেছে, এ বিষয়ে কারও সঙ্গে কথা না বলতে। মানুষ দেশে অনেক কথাই বলে। যদি কোনো প্রমাণ থাকে তাহলে দেখাক।

ফ্লাটের ভাড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আমি যদি ফ্লাট ভাড়া নেই। আমি কি আমার ফ্লাটে এই ধরণের কাজ করব? আমার পাসপোর্ট রেকর্ড দেখলে দেখা যাবে আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না। এখন বলা হচ্ছে আমি ৫ কোটি টাকা দিয়েছি। কিভাবে আমি ৫ কোটি টাকা দিয়েছি। কোথার থেকে পেলাম আমি এত টাকা। এখন এগুলো মানুষ বললে আমার কি করার আছে। ঘটনা কবে ঘটেছে সেগুলো আমি পত্রিকায় দেখেছি। সে সময় আমি বাংলাদেশে ছিলাম।

উল্লেখ্য, গত ১১ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার চিকিৎসার জন্য ভারতে যান। এরপর তিন দিন পার হলেও পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করতে পারেননি। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন। পরে বুধবার (২২ মে) তার লাশের খন্ডিতাংশ সন্ধান পায় ভারতীয় পুলিশ।

এদিকে, ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আখতারুজ্জামান শাহীন বলে দাবি করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ। হত্যাকাণ্ড ঘটানোর পরই শাহীন ঢাকা ছাড়েন বলেও দাবি করেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

হারুন অর রশীদ বলেন, হত্যাকাণ্ড বাস্তবায়নকারী আমানুল্লাহ ছদ্মনাম, তার নাম শিমুল ভূঁইয়া। তিনি পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির নেতা। বর্তমানে আমানুল্লাহ ও মূল পরিকল্পনাকারী আখতারুজ্জামান শাহীনের গার্লফ্রেন্ড শিলাস্তি রহমান ডিবির হাতে আটক রয়েছে। তাদের থেকেই হত্যাকাণ্ডের পুরো ঘটনা জানা গেছে বলে জানান হারুন অর রশীদ।

তিনি বলেন, ১৩ মে এমপি আনারকে হত্যার পর শাহিনের গার্লফেন্ড শিলাস্তি ও আমানুল্লাহ ১৫ মে এবং মোস্তাফিজ ১৬ তারিখ ঢাকায় ফেরেন। এরপরেই ভিস্তা এয়ারলাইন্সে করে মূল পরিকল্পনাকারী শাহীন দিল্লি হয়ে কাঠমাণ্ডুতে চলে যান। বর্তমানে তিনি পলাতক আছেন।

হারুন বলেন, ১৮ তারিখ গোপাল বিশ্বাস জিডি বন্ধু আনার নিখোঁজের ঘটনায় জিডি করেন। পরে হত্যাকারীরা ভিকটিমের মোবাইল থেকে কল ও মেসেজ দিয়ে বিষয়টিকে ভিন্নখাতে নেওয়ার চেষ্টা করে। ১৮ তারিখে পর দিল্লি যাচ্ছি জানিয়ে এমপি আনারের ফোন থেকে বার্তাও দেওয়া হয়।

দীর্ঘদিন ধরে পরিকল্পনার অংশ হিসেবে হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয় জানিয়ে তিনি আরও বলেন, প্রথমে বাংলাদেশে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তবে ডিবি পুলিশের তৎপরতার কারণে ঢাকায় হত্যাকাণ্ড ঘটাতে সাহস করেনি তারা। এ কারণে ভারতে এমপি আনারকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। ঢাকার গুলশান ও ভাটারা এরিয়ার দুটি ফ্ল্যাটে বসে এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা হয় বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাট ভাড়া নেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আখতারুজ্জামান শাহীন। ২৫ তারিখ ফ্ল্যাট ভাড়া নেয়ার পর ৩০ তারিখ থেকে সেখানে শাহীনের লোকজন যাওয়া-আসা শুরু করে। ওই ফ্ল্যাটেই আনারকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:০৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar