বুধবার ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খাদ্য মন্ত্রী সমীপে কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং এবং দেবি ওয়াশারওম্যান

অভাবী আমেরিকানদের জন্যে হালাল-কুশের খাদ্যও বিতরণ করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট  

সংকটে পড়া আমেরিকানদের মধ্যে পুষ্টিকর খাদ্য বিতরণ কর্মসূচিতে বরাদ্দকৃত দুই বিলিয়ন ডলার বন্টনে হালাল এবং কুশের খাদ্যকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ দাবি জানিয়েছেন নিউইয়র্কের কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং এবং ফ্লোরিডার কংগ্রেসওম্যান দেবি ওয়াশারওম্যান শালটজ।

২৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্প্রতিবার বাইডেনের কৃষি মন্ত্রী টমাস ভিলসেক বরাবরে প্রেরিত পত্রে তারা উল্লেখ করেছেন, করোনা এবং যুদ্ধ জনিত কারণে যুক্তরাষ্ট্রে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বেড়েছে। এ বছরের জুন পর্যন্ত খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় পড়া আমেরিকানের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৪০ লাখ। এর আগে অর্থাৎ ২০২০ সালে এ সংখ্যা ছিল এক কোটি ৪০ লাখ। অভাবে পড়া লোকজনের মধ্যে খাদ্য-সামগ্রি বিতরণে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের চলমান কর্মসূচিতে আরো দুই বিলিয়ন ডলার যোগ করা হয়েছে।

সেই অর্থ বন্টনের সময় যেন হালাল খাদ্য (মুসলিম সম্প্রদায়) এবং কুশের খাদ্য (জুইশ সম্প্রদায়ের ধমপ্রাণ মানুষের জন্যে) কে সমান গুরুত্ব দেয়া হয়-এ আহবান উচ্চারিত হয়েছে দুই কংগ্রেসওম্যানের ঐ পত্রে। তাঁদের এ দাবির সাথে সংহতি প্রকাশ করেছেন ‘হাঙ্গার ককাসের ভাইস প্রেসিডেন্ট কংগ্রেসম্যান জেমস ম্যাকগভর্ণ (ম্যাসেচুসেটস’র ডেমোক্র্যাট)। ম্যাকগভর্ণ উল্লেখ করেছেন যে, গত ৫০ বছরের মধ্যে এমন খাদ্য সংকট দেখা যায়নি। এথেকে আমেরিকানদের রক্ষায় সুদূর প্রসারি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং বলেন, করোনা মহামারিকালে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য-সামগ্রির উৎপাদন ও বিতরণ ব্যবস্থা ব্যাহত হয়েছে। তা থেকে পরিত্রাণের অভিযাত্রায় মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে। খাদ্য-সামগ্রির মূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। এহেন অবস্থায় বাইডেন প্রশাসন রান্না করা খাবারের পাশাপাশি টাটকা শাক-সব্জি, চাল-ডাল-তেল-নুন-দুধ-ফলের রস ইত্যাদি বিতরণ করছে। এমন পদক্ষেপের প্রশংসা করা হচ্ছে সকল কম্যুনিটি থেকে। মেং উল্লেখ করেছেন, এই প্রকল্পে নতুন বরাদ্দকৃত দুই বিলিয়ন ডলার বন্টনের সময় যেন হালাল খাদ্য এবং কুশের খাদ্য গ্রহণকারিদের কথা সংশ্লিষ্টরা ভুলে না যান। কারণ, অনেক মানুষই তার ধর্মীয় অনুভূতি, জাতিগত প্রথার বাইরে যেতে চান না খাদ্যাভাব চরম হলেও।

সে সব মানুষকে অবজ্ঞা-অবহেলার সুযোগ থাকতে পারে না। তারাও এই সমাজেরই অংশ। মেং বলেছেন, বিশেষ করে পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থীর বড় একটি অংশ হচ্ছে হালাল এবং কুশের খাদ্য গ্রহণকারি পরিবারের সদস্য। স্কুলসমূহেও হালাল খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিত রাখতে হবে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar