বুধবার ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গ্যাসের দাম আবারো বাড়ছে : সর্বোচ্চদেনার দায়ে জর্জরিত যুুক্তরাষ্ট্র

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২ | প্রিন্ট  

গ্যাসের দাম আবারো বাড়ছে  : সর্বোচ্চদেনার দায়ে জর্জরিত যুুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্র ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি জাতীয় দেনায় জর্জরিত হলো। এর পরিমাণ ৩১ ট্রিলিয়ন ডলার। অর্থ মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী দেনার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩১.১২৩ ট্রিলিয়ন ডলার। করোনার প্রাদুর্ভাব ঘটার প্রথম মাসেই দেনার খতিয়ানে এক ট্রিলিয়ন ডলার যোগ হয়েছিল।

২০২০ সালে এর পরিমাণ দ্বিগুণ হয়েছিল। এরপর অতিবাহিত হলো প্রায় দু’বছর। করোনায় লকডাউনে থাকাবস্থায় জাতীয় বাজেটের চেয়ে ২.৮ ট্রিলিয়ন ডলার অধিক ব্যয় করতে হয়েছে। চলতি ২০২২ সালের জাতীয় বাজেটে ঘাটতির পরিমাণ এক ট্রিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবার আশংকা করছেন অর্থনীতিবিদরা। চলতি বছর কংগ্রেসের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি বছর জাতীয় দেনার পরিমাণ এক ট্রিলিয়ন ডলার করে বাড়তে থাকলেও জাতীয় প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে তার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না বলে মন্তব্য বিশেষজ্ঞদের। হেলথ এবং পরিবেশ সুরক্ষা নীতির কারণে জনজীবনে স্বস্তি থাকবে। মুদ্রাস্ফীতি হ্রাসের পরিকল্পনায় জাতীয় দেনার ক্ষেত্রটিকে অনেকে তুচ্ছ বিবেচনা করছেন। একইসাথে রয়েছে মানবিক মূল্যবোধ সমুন্নত রাখার স্বার্থে ইউক্রেনকে অর্থ সহায়তা অব্যাহত রাখা।

অপরদিকে, মুদ্রাস্ফীতির যাঁতাকলে অতীষ্ঠ আমেরিকায় আবারো গ্যাসের দাম বৃদ্ধির আভাস পাওয়া যাচ্ছে। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ শুরুর পর গ্যাসের দাম আকাশচুম্বি হয়েছিল। এরপর মাস তিনেক হলো কিছুটা নিম্নমুখী হয়। কিন্তু এখন আবার বাড়বে বলে সংশ্লিষ্টরা উল্লেখ করছেন। জ্বালানী তৈরীর ব্যবস্থাপনা খরচ মেটানোর পাশাপাশি গ্যাসের চাহিদা বৃদ্ধির সাথে সঙ্গতি রেখে সরবরাহ ব্যবস্থার সমন্বয় ঘটানো সম্ভব না হওয়ায় সহসাই গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিকল্প নেই বলে উল্লেখ করেছেন সংশ্লিস্টরা। উল্লেখ্য, বুধবারও প্রতি গ্যালন গ্যাসের গড় মূল্য ছিল ৩.৮৩ ডলার। এ অবস্থায় ওপেক ( অর্গানাইশেন অব দ্য পেট্রলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিজ)এবং রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন বন্ধু রাষ্ট্রসমূহ বুধবার তেল উৎপাদনের পরিমাণ দৈনিক দুই মিলিয়ন ব্যারেল কমিয়ে দেয়ার ঘোষণা দেয়। এমন সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়বে গ্যাসের বাজারে। ওপেকের এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে হোয়াইট হাউজ।

জনজীবনের ওপর গভীর পর্যবেক্ষণ রয়েছে এমন বিশ্লেষকরা মনে করছেন পুনরায় গ্যালন প্রতি ৫ ডলার মূল্যে গ্যাস ক্রয়ের সক্ষমতা এখন অনেক আমেরিকানেরই নেই। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসহ পানি, বিদ্যুৎ, ইন্টারনেট খরচ ইতিমধ্যেই বৃদ্ধি পাওয়ায় সিংহভাগ আমেরিকান নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছে। অনেকে পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণের পরিমাণ হ্রাস করেছেন। কেউ কেউ তিন বেলার পরিবর্তে দু’বেলা খাদ্য গ্রহণ করছেন।
নভেম্বরের ৮ তারিখের মধ্যবর্তী নির্বাচনের প্রাক্কালে গ্যাসের দাম আবারো আকাশচুম্বি হবার সংবাদে বিচলিত বাইডেন প্রশাসন। এজন্যে তিনি ওয়েল কোম্পানীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন অতিরিক্ত উৎপাদনে যাবার জন্যে। বিদ্যমান রিজার্ভ থেকেও বাজারে আরো বেশী গ্যাস সরবরাহ করার আহবানও রয়েছে হোয়াইট হাউজ থেকে। ধারনা করা হচ্ছে, পেট্রলিয়াম প্রডাক্ট রফতানীর পরিমাণ কমিয়ে দেয়ার কথাও জানাবে হোয়াইট হাউজ।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:২৮ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar