মঙ্গলবার ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাওনা টাকা না পাওয়ার হতাশা

মারা গেছেন প্রেস ক্লাবের সামনে গায়ে আগুন দেওয়া ব্যক্তি

প্রতিদিন ডেস্ক   |   মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২ | প্রিন্ট  

মারা গেছেন প্রেস ক্লাবের সামনে গায়ে আগুন দেওয়া ব্যক্তি

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা কাজী আনিস (৫০) মারা গেছেন। মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকাল ৬টা ১০ মিনিটের দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। বার্ণ ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন কালের কণ্ঠকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ।

কাজী আনিস কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে। পেশায় ঠিকাদারি ব্যবসা করতেন আনিস। তিনি কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ছিলেন। ১৯৯৩ সালে তিনি জেলা ছাত্রলীগে সভাপতির দায়িত্ব পান।

কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খন্দকার ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‌‘কাজী আনিস আমার পর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হয়। শুনেছি সে ঢাকায় প্রেস ক্লাবের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। ’

এর আগে সোমবার (৪ জুলাই) বিকেল ৫টার দিকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পাওনা টাকা না পাওয়ার হতাশায় গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন আনিস। পরে তাকে উদ্ধারকরে পুলিশের সহযোগিতায় দ্রুত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়।

আনিস সেই সময় জানিয়েছিলেন, হেনোলাক্স কম্পানির কাছে তিনি এক কোটি ২৬ লাখ টাকা পাবেন। কম্পানি পাওনা টাকা দিচ্ছে না। এ নিয়ে এর আগে মানববন্ধন করেছেন তিনি, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। তাই আজ গায়ে আগুন দিয়েছেন।

ওই সময় হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ডপ্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক এস এম আইউব হোসেন জানান, দগ্ধ কাজী আনিসের শরীরে ৯০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক।

দুই মাস আগে একটি কম্পানির কাছে এক কোটি ২৬ লাখ টাকা পাওনার দাবি নিয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছিলেন কাজী আনিস।

 

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১:৪৬ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar