মঙ্গলবার ২৩শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মান বাঁচিয়েছেন সাংবাদিক সাকি ‘জয় বাংলা গীতি-নৃত্যনাট্য’ পরিবেশন করে

অনুদান না পাওয়ায় বঙ্গ সম্মেলনে উপেক্ষিত বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র   |   মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২ | প্রিন্ট  

অনুদান না পাওয়ায় বঙ্গ সম্মেলনে উপেক্ষিত বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

বঙ্গ সম্মেলনে সাংবাদিক হাসানুজ্জামান সাকির নির্দেশিত ‘জয় বাংলা গীতি নৃত্যনাট্য’ শেষে রেজওয়ানা চৌধুরীসহ শিল্পীরা জাতীয় সঙ্গীতে অংশ নেন। ছবি-বাংলাদেশ প্রতিদিন।

অনুদানের টাকা না পাওয়ায় লাসভেগাসে অনুষ্ঠিত ‘৪২তম বঙ্গ সম্মেলনে’ বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং ভারত কর্তৃক বাংলাদেশকে স্বীকৃতির ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে যেসব কর্মসূচির ঢাকঢোল পেটানো হয়েছিল তার কোনটিই করা হয়নি। এমনকি ৩ জুলাই সম্পন্ন তিনদিনব্যাপী সম্মেলনের কর্মসূচিতেও তা ছিল না।

ভারতীয় বাঙালিদের এই সম্মেলনে বাংলাদেশ সম্পর্কিত সমন্বয়কারি সময় টিভির যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি হাসানুজ্জামান সাকির পীড়াপিড়িতে সমাপনী দিবসের অপরাহ্নে ‘জয় বাংলা গীতি-নৃত্যনাট্য’টি পরিবেশনের সুযোগ দেয়ায় কিছুটা স্বস্তি পেয়েছেন সম্মেলনে যোগদানকারি কয়েক ডজন বাংলাদেশী। আয়োজক কমিটিতেও একমাত্র মুসলমান সদস্য ছিলেন এই সাকি। সম্মেলনে অংশগ্রহণকারিরাও প্রতিপদে বিব্রত হয়েছেন বাংলাদেশ অনুদান দেয়নি কেন এমন উদ্ভট কথাকতায়।

একই কারণে বৈদেশিক মুদ্রার ব্যয়ও সতর্কতার সাথে করতে বলায় বঙ্গ সম্মেলনে অনুদানের কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়নি।
গত ১০ মার্চ ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে কর্মকর্তারা আরো বলেছিলেন যে, বঙ্গ সম্মেলন সারাবিশ্বের বাঙালিদের সবচেয়ে বড় সম্মেলন। ‘হাতে হাত ধরে চলি’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার সেরা প্ল্যাটফর্ম এনএবিসি (নর্থ আমেরিকা বেঙ্গল কনফারেন্স)। আলোচনাচক্র, বিজনেস ফোরাম, প্যাভিলিয়ন সজ্জার এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের অগ্রগতির রূপরেখা আঁকা হবে। বিনিয়োগের সম্ভাবনা বাড়বে।’
বঙ্গ সম্মেলন-২০২২ এর বাংলাদেশের সমন্বয়কারী এ.এস.এম সামছুল আরেফিন সে সময় বলেছিলেন, ‘২০১৫ সালে বাংলাদেশ প্রথম অংশগ্রহন করে বঙ্গ সম্মেলনে।

সরকারি স্তরের আইসিটি ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যোগ দিচ্ছে এ বছর। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী বৃহৎ পরিসরে উদযাপন এবং বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র বিশ্বের কাছে তুলে ধরার প্রত্যয়ে এন এ বি সি সম্মেলনে আমরা যোগ দিচ্ছি।’ বাস্তবে এই এ এস এম সামছুল আরেফিনকেও লাসভেগাসে দেখা যায়নি।

অর্থাৎ তিনিও আইসিটি মন্ত্রণালয়ের অনুদানের ভরসায় ছিলেন।
এন এ বি সি এর আহ্বায়ক মিলন কুমার আওন বলেছিলেন, ‘৪২ বছর আগে ২০০ লোক নিয়ে এই বঙ্গ সম্মেলন শুরু হয়। বর্তমানে ১০ হাজার লোকের জমায়েত হয়। আর কোন এথনিক জনগোষ্ঠী এত বড় অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারে না।’
বাস্তবে দেড় হাজারের বেশী মানুষের সমাগম ঘটেনি বলে সম্মেলনে যোগদানকারি বাংলাদেশীরা জানান।
ঢাকায় প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা প্রচারের পরই একজন প্রতিমন্ত্রীর সুপারিশে এক কোটি টাকা অনুদান পাবেন বলে আয়োজকরা নিশ্চিত হয়েছিলেন। তারআগেই নিউইয়র্কে ঢাকঢোল পিটিয়ে নায়ক শাকিব খানকে সম্মেলনের ব্র্যান্ড এ্যাম্বাসেডর ঘোষণা করা হয়েছিল। এ ব্যাপারে তাঁর সাথে আনুষ্ঠানিক চুক্তির মহড়াও করা হয় নিউইয়র্কে বিএনপি ঘরানার একটি মিডিয়ার ব্যবস্থাপনায়।
লাস ভেগাসে বঙ্গ সম্মেলন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা ছাড়া আর কোন কন্ঠশিল্পীকে দেখা যায়নি। নগর বাউল জেমস যুক্তরাষ্ট্রে আসতে পারছেন না না জটিলতায়। এতদসত্বেও বঙ্গ সম্মেলনের ভারতীয় টিভিতে প্রচারিত বিজ্ঞাপণে হরদম জেমস আসছেন বলে প্রচার করা হয়।

উল্লেখ্য, উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত বাংলাদেশী শিল্পী-সাহিত্যিক-পেশাজীবী-বুদ্ধিজীবীরা বরাবরই বঙ্গ সম্মেলনে উপেক্ষিত থেকেছেন। একইভাবে বাংলা ভাষার পত্রিকাগুলোকেও কখনোই ওরা পাত্তা দিয়নি। এবারও একই ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে ক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতেই ‘ফোবানা’ যাত্রা করেছে।

গত বছর ওয়াশিংটন ডিসিতে লেবার ডে উইকেন্ডে তিনদিনব্যাপী ফোবানা সম্মেলনের সকল কর্মকান্ড উৎসর্গ করা হয় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে। এতদসত্বেও ফোবানা বাংলাদেশের কথিত সেই প্রতিমন্ত্রী সুপারিশ করেননি অনুদানের জন্যে কিংবা তারা পায়নি বলে ২ জুলাই নিউইয়র্কে ফোবানার সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন ৩৫তম ফোবানার সদস্য-সচিব শিব্বির আহমেদ।
বঙ্গ সম্মেলনে আধ ঘন্টার বেশী সময়ের ‘জয়বাংলা গীতি নৃত্যনাট্য’টি পরিবেশনের সময় সামান্যসংখ্যক দর্শক-শ্রোতার প্রায় সকলেই ছিলেন প্রবাসী বাংলাদেশী। এই নৃত্যনাট্যের শেষ লগ্নে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতে অংশ নিতে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, নায়ক ইমন এবং মীর সাব্বিরও মঞ্চে উঠেছিলেন। এটি নবাব সিরাজউদৌলাহর পাক-ভারত সৃষ্টির পরও বাংলাদেশীরা স্বাধিকার-অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছিলেন আলোকপাতের পরই মাতৃভাষার আন্দোলনের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর দূরদর্শিতাপূর্ণ নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধে বাঙালিদের অবিস্মরণীয় বিজয়ের ঘটনাবলি বিবৃত হয়েছে। একাত্তরের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণও স্থান পেয়েছে এতে।

আর এভাবেই বঙ্গ সম্মেলনে বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে ক্ষণিক সময়ের জন্যে হলেও উপস্থাপন করা সম্ভব হয়েছে। এই সম্মেলনে অংশ নেয়া যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল হামিদ এ সংবাদদাতাকে জানান, হাসানুজ্জামান সাকীর পিড়াপিড়িতে মান কিছুটা হলেও রক্ষা হয়েছে। অন্যথায় পুরোটাই আয়োজকদের ভন্ডামির সামিল হতো। অর্থাৎ এই গীতিনৃত্যনাট্য পর্ব বাদ দিলে সম্মেলনকে পশ্চিম বঙ্গের বাঙালিদের অনুষ্ঠান বলেই মনে করতে হবে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১২:২৯ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর...

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১৩
১৫১৬১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
৩০৩১  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar