রবিবার ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরোচিত অভিবাদন রওশন আরা বেনুর কফিনে

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ০২ আগস্ট ২০২২ | প্রিন্ট  

বিরোচিত অভিবাদন রওশন আরা বেনুর কফিনে

বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহেরের নেতৃত্বে রওশনআরা বেনুর কফিনে স্যালুট। ছবি-বাংলাদেশ প্রতিদিন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সমর্থনে আন্তর্জাতিক জনমত সৃষ্টির জন্যে যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ায় মার্কিন বন্ধুদের সাথে সরব থাকা রওশন আরা বেনু চলে গেলেন না ফেরার দেশে। ২৩ জুলাই ওয়াশিংটন স্টেটের সিয়াটল সিটিতে তিনি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন)।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তার লাশ দাফন করা হয় ৩০ জুলাই শনিবার বিকেলে পেনসিলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়া সিটির ভ্যালি ফোর্জ মেমরিয়্যাল গার্ডেন গোরস্থানে। এর আগে বাংলাদেশীদের উদ্যোগে গোরস্থানেই নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সেখানকার বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পেনসিলভেনিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু তাহেরের উদ্যোগে কফিনে জাতীয় পতাকা মুড়িয়ে শেষ শ্রদ্ধাঞ্জলি-অভিবাদন জানানো হয়।

এ সময় সেখানে ছিলেন ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের কন্স্যুলার মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান। তিনি রাষ্ট্রদূতের শোক-বাণী এনেছিলেন। সেখানে আরো ছিলেন কমুনিটির বিশিষ্টজনের সাথে বেনুর স্বামী একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সমর্থনে কাজ করা মোনায়েম চৌধুরী। বিশিষ্টজনদের মধ্যে আরো ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার মাজহারুল হক, আবু আমিন রহমান, প্রকৌশলী সালাহউদ্দিন আহমেদ, আবু আমিন, অধ্যাপক ফারুক সিদ্দিকী, ডঃ ইবরুল চৌধুরী, কামাল রহমান, ইঞ্জিনিয়ার রিজা কাবিলি, প্রফেসর ডঃ বখতিয়ার ফারুক, প্রফেসর ডঃ ইকবাল মনসুর, মনি আপা, শেলী রহমান, সাংবাদিক মফিজুল ইসলাম, খায়ের মোহাম্মদ মিঞা, তোজ্জাম্মেল হক, আলীম উদ্দিন এবং বাংলাদেশী আমেরিকান কমিউনিটি ফোরাম অব পেনসিলভেনিয়ার প্রতিনিধি মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম।

ফিলাডেলফিয়া কম্যুনিটির লিডার ডা. ইবরুল চৌধুরী জানান, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিভিন্ন সিটিতেই আমেরিকানরা র‌্যালি করেছেন। ফিলাডেলফিয়া সিটির র‌্যালি সমূহের অন্যতম সংগঠক ছিলেন ড. মীর আব্দুল মোনায়েম চৌধুরী এবং তার স্ত্রী রওশন আরা বেনু। এরপর বেনুর সন্তান আজিজ চৌধুরী সিয়াটলে বসতি গড়লে মা-বাবাও সেখানে চলে গেছেন। তবে যৌবন-শৈশবের স্মৃতি বিজড়িত বিশেষ করে বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামের পক্ষে লাগাতার কর্মসূচি পালনের জন্যে ফিলাডেলফিয়ার সাথে যে মায়ার বন্ধন জড়িয়ে রয়েছে, তার জন্যেই বেনু তার সন্তানদের জানিয়েছিলেন প্রায় তিন হাজার মাইল দূর এই সিটিতে যেন তাকে দাফন করা হয়। সেই অনুরোধেই ২৭ জুলাই বেনুর লাশ আনা হয়েছিল।

স্থানীয় সাংবাদিক আশরাফুল ইসলাম আরিফ জানান, বেনুর মৃত্যু সংবাদে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে ফিলাডেলফিয়াসহ যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অধ্যুষিত সিটিসমূহে। কুষ্টিয়া জেলার আলমডাঙ্গার বাবুপাড়ার চৌধুরী বাড়ির পুত্রবধূ রওশন আরা বেনুর মৃত্যুতে গভীর শোক এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা জ্ঞাপণকারি বিশিষ্টজনদের মধ্যে রয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. জিয়াউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক আবু আমিন রহমান, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা ড. নিনা আহমেদ, কম্যুনিটি এ্যাক্টিভিস্ট শেলী রহমান, ডাঃ ফাতেমা আহমেদ, ডাঃ ইবরুল চৌধুরী, ফারহানা আফরোজ, জোহরা খাতুন কলি ও মিলর্বন বরোর মেয়র মাহবুবুল তৈয়ব, আপারডাবী এবং মিলর্বন বরোর সকল নির্বাচিত কাউন্সিলম্যান সহ পেনসিলভেনিয়ার ২১টি সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত ‘বন্ধু সংগঠন সমূহ’র কর্মকর্তারা।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০২ আগস্ট ২০২২

nypratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

Editor : Naem Nizam

Executive Editor : Lovlu Ansar